ইউআইটিএসের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

ইউআইটিএসের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্যোগে বিভাগের ৩৪ ও ৩৫তম ব্যাচের বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৬ মে) সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচপি স্কয়ারে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. নূর মোহাম্মদ সুমনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আবু হাসান ভূঁইয়া। অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা ছিলেন বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়াটার-২ এর হেড অফ স্ট্রেটেজি, প্লেনিং এবং পিআর, ইঞ্জিনিয়ার মো. জাকারিয়া জালাল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. আবু হাসান ভূঁইয়া বলেন, পাশ করা শিক্ষার্থীরা যেন দক্ষ সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণে নিজেদেরকে নিয়োজিত করে। ইউআইটিএস থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীরা আমাদের এলামনাই, তারা যেন ইউআইটিএসের সাথে সবসময় যোগাযোগ রাখে। উপাচার্য শিক্ষার্থীদের প্রতি ইউআইটিএসের সুনাম অক্ষুণ্য রাখার আহবান জানান। তিনি প্রধান বক্তা ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সকলকে ধন্যবাদ-সহ বিদায়ী শিক্ষার্থীদের শুভকামনা জানান।

প্রধান বক্তা তার বক্তব্যে বলেন, জীবনে কখনো হতাশ হওয়া যাবে না। জীবন থেকে যদি হতাশা দূর করা যায়, তাহলে যেকোন কিছুই অর্জন করা যাবে। যখন কঠিন সময় আসবে, তখন নিজেকে গুটিয়ে নিয়ে আগামীর জন্য তৈরি করতে হবে যেন সামনের কঠিন সময় মোকাবেলা করা যায়। তিনি বিদায়ী শিক্ষার্থীদের প্রফেশনাল হওয়া ও সেই সাথে কারও দূর্বলতার সুযোগ না নেওয়ার আহবান জানান।

এই অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. নূর মোহাম্মদ সুমন, সহকারি অধ্যাপক জনাব আয়শা আকতার এবং সহকারি অধ্যাপক ও ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা জনাব মোঃ তারিকুল ইসলাম ।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিভাগটির প্রথম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো. মঞ্জুরুল হাসান সাজিদ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থী, এলামনাই, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিকে ফুলের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি কেক কেটে বিদায়ী শিক্ষার্থীদের বিদায় জানানো হয়। পরে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিতর্ক প্রতিযোগিতা, ইনডোর গেইম ও এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *