চালু হচ্ছে রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের তৃতীয় সঞ্চালন লাইন

চালু হচ্ছে রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের তৃতীয় সঞ্চালন লাইন

পাবনা জেলার রূপপুরে নির্মাণাধীন দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য তৃতীয় সঞ্চালন লাইনটি প্রস্তুত হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বগুড়ায় ৪০০/২৩০ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্ৰ পর্যন্ত ৮৯ দশমিক ৯২ কিলোমিটার দীর্ঘ ‘৪০০ কেভি সিঙ্গেল সার্কিট সঞ্চালন লাইনটি চালু করা হবে বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ-পিজিসিবি।

পরীক্ষামূলক উদ্বোধনের পর থেকেই সঞ্চালন লাইনটি সচল থাকবে। এ কারণে পাবনা, নাটোর ও বগুড়া জেলার কিছু এলাকার জন্য সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

দেশের সর্ববৃহৎ এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটি চলতে বছরের শেষ নাগাদ উদ্বোধনের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। সেই আলোকে প্রস্তুত করা হচ্ছে সঞ্চালন লাইনগুলো। মোট ছয়টি সঞ্চালন লাইনের মাধ্যমে রূপপুর ২৪০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার এই পারমাণবিক কেন্দ্রের বিদ্যুৎ সঞ্চালন করা হবে।

এর মধ্যে স্থালভাগে নির্মিত তৃতীয় সঞ্চালন লাইনটি চালু হলো। আর পদ্মা ও যমুনা নদী পাড়ি দিয়ে ঢাকা, গোপালগঞ্জসহ দেশের অন্যান্য অঞ্চলের জন্য নির্মিত সঞ্চালন লাইনও প্রায় প্রস্তুত বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

পিজিসিবির মুখপাত্র এ বি এম বদরুদ্দোজা খান জানান, উচ্চ ভোল্টেজের কোনো নতুন বিদ্যুৎ লাইন চালুর আগে এ ধরনের সতর্কতা সব সময় দেওয়া হয়।

পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী, সলিমপুর ও মুলাডুলি ইউনিয়ন; নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার গোপালপুর, নগর, মাঝগাঁও ও বড়াইগ্রাম ইউনিয়ন; গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়ন এবং সিংড়া উপজেলার চামারী, কলম, চৌগ্রাম ও রামানন্দ খাজুরা ইউনিয়নের ওপর দিয়ে নতুন এই সঞ্চালন লাইন যাচ্ছে।

এছাড়া বগুড়া জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার নন্দীগ্রাম ও ভাটগ্রাম ইউনিয়ন এবং কাহালু উপজেলার জামগ্রাম ইউনিয়ন এই নির্দেশনার আওতায় থাকবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মঙ্গলবার বেলা ১১টা থেকে নবনির্মিত লাইনটি সার্বক্ষণিকভাবে চালু থাকবে। এ অবস্থায় নবনির্মিত ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইনের টাওয়ারে আরোহন, গবাদিপশু বাঁধা, টাওয়ারে রশি বেঁধে কাপড় শুকানো, লাইনের নিচে ও পাশে বাঁশঝাড় ও বড় গাছ রোপণসহ ঝুঁকিপূর্ণ কাজ থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করা হচ্ছে।

সেইসঙ্গে সবাইকে ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইন থেকে নিরাপদ (উভয় পাশে ২৩ মিটার) দূরত্বে থাকতে অনুরোধ করা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে। উচ্চ ভোল্টেজের এই সঞ্চালন লাইন বা টাওয়ারের সংস্পর্শে এসে কেউ বিদ্যুতায়িত হলে পিজিসিবি কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *