ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে জাপানে কর্মসংস্থান শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে জাপানে কর্মসংস্থান শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে (ডিআইইউ) ‘জাপানে ক্যারিয়ার গড়ার লক্ষ্যে কারিগরি শিক্ষার গুণমান বৃদ্ধি’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইনোভেশন সেন্টারের (আইআইসি) উদ্যোগে আজ বৃহস্পতিবার (২৬ অক্টোবর ২০২৩) রাজধানীর বিরুলিয়াস্থ ডিআইইউ ক্যাম্পাসে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানি রাষ্ট্রদূত ইওয়ামা কিমিনোরি। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ খায়রুল আলম এবং জাপান এক্সটারনাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের (জেটরো) কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ইউজি আন্দো। সেমিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ ইচিগুচি তোমোহাইড এবং জাপান বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (জেবিসিসিআই) ভাইস প্রেসিডেন্ট সুগাওয়ারা মানাবু।

সেমিনারে বক্তব্য গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন ডিআইইউ ট্র্র্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খান। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড্যাফোডিল ফ্যামিলির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ড. মোহাম্মদ নুরুজ্জামান। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডিআইইউর বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সৈয়দ আক্তার হোসেন এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইনোভেশন সেন্টারের প্রকল্প পরিচালক আবু তাহের খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইওয়ামা কিমিনোরি বলেন, জাপান বাংলাদেশের সম্পর্ক বন্ধুত্ব ও আস্থার। সে সম্পর্কের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ও জাপান আগামী বছরগুলোতে পারস্পরিক সহযোগিতার সুস্পষ্ট দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে অংশীদারীত্বকে দৃঢ় করার জন্য বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ নিয়ে একসংগে কাজ করে এগিয়ে যাবে। তিনি বলেন, একটি উন্নয়নশীল দেশের জন্য কারিগরি শিক্ষার উন্নয়ন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জাইকা, জেট্রোসহ বিভিন্ন দাতা সংস্থার মাধ্যমে জাপান বাংলাদেশর অর্থনৈতিক ও কারিগরি উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রেখে চলেছে এবং এ সহযোগিতার ধারা আগামী দিনগুলোতে শুধু অব্যাহতই থাকবে না; বরং সহযোগিতার নতুন নতুন ক্ষেত্র এর সাথে যুক্ত হবে। ডিআইইউ আয়োজিত এ সেমিনার উভয় দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে শিক্ষার্থী ও শিক্ষক বিনিময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্র্র্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খান বলেন, বাংলাদেশের মানুষের প্রধান সমস্যা দক্ষতার ক্ষেত্রে ব্যাপক ঘাটতি। তাই বাংলাদেশের মানুষের দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে ব্যাপকভিত্তিক উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন। তিনি বলেন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও ড্যাফোডিল পরিবারের আওতায় ভৌত অবকাঠামো ও অন্যান্য পরিসম্পদসহ সকল প্রকার সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। আমাদের জন্য আর্থিক সহযোগিতার তেমন কোনো প্রয়োজন নেই। আমাদের জন্য প্রয়োজন হচ্ছে কারিগরি ও প্রযুক্তিক সহযোগিতা। তিনি জাপানী দাতা গোষ্ঠী ও সরকারের বিভিন্ন সংস্থাগুলোকে প্রধানত কারিগরি ও প্রযুক্তিক সহায়তা নিয়ে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদাল্যয় ও ড্যাফোডিল পরিবারের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে ড্যাফোডিল ফ্যামিলির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ নুরুজ্জামান বলেন, জাপানের চাকরির বাজারে ভালো সুযোগের জন্য জাপানি ভাষা শিক্ষণের ক্ষেত্রে বিদ্যমান ব্যবধান কমাতে হবে, দক্ষতার ঘাটতি দূর করার ওপর জোর দিতে হবে এবং কর্মপরিবেশের দক্ষতা প্রশিক্ষণ, সংস্কৃতি, শিষ্টাচার এবং মনোভাব প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। তিনি আরো বলেন, জাপান স্টাডি সেন্টার স্থাপন, ছাত্র-শিক্ষক বিনিময় এবং গতিশীলতা প্রোগ্রাম এবং যৌথ গবেষণা ও প্রকাশনা চালু করার মাধ্যমে এ ব্যবধান কমিয়ে আনা সম্ভব হবে। ড্যাফোডিল পরিবার ইতোমধ্যে এসব বিষয়ের উপর গুরুত্ব দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এবং ২৫টি জাপানি অংশীদারী প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় এক হাজারের বেশি যুবককে জাপানে কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *