দুই শতাধিক চাকরির সুযোগ নিয়ে স্কিল জবস এর ‘আইটি জব ফেয়ার-২০২৪’ আয়োজন

দুই শতাধিক চাকরির সুযোগ নিয়ে স্কিল জবস এর ‘আইটি জব ফেয়ার-২০২৪’ আয়োজন

রাজধানীতে ড্যাফোডিল পরিবারের অধিভুক্ত অনলাইন জব পোর্টাল এবং অনলাইনে চাকরি খোঁজার প্রতিষ্ঠান ও রিক্রুটমেন্ট সল্যুশন প্রোভাইডার স্কিল জবস ‘আইটি জব ফেয়ার-২০২৪’ আয়োজন করেছে। আজ শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) ধানমন্ডির ড্যাফোডিল প্লাজায় এই ফেয়ারের আয়োজন করা হয়।

.

জব ফেয়ারটিতে দুই শতাধিক চাকরির সুযোগ নিয়ে দেশের স্বনামধন্য ২০টি আইটি কোম্পানি অংশগ্রহণ করেছে। এইজব ফেয়রের মূল লক্ষ্য ছিল চাকরিদাতা এবং চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন করা। ফেয়ারটিতে প্রায় এক হাজারেরও বেশি তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞানসম্পন্ন চাকরিপ্রার্থী অংশগ্রহণ করে এবং অংশগ্রহনকৃত কোম্পানিগুলোর বিভিন্ন পদে সরাসরি আবেদন করে। তাছাড়া, অনেক কোম্পানি ফেয়ার চলাকালীন সময়ে স্পট ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে তাদের প্রয়োজনীয় প্রার্থী নির্বাচন করেন।

জব ফেয়ারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ড্যাফোডিল পরিবারের চেয়ারম্যান ড. মোঃ সবুর খান ও ড্যাফোডিল পরিবার ও স্কিল জবসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ নুরুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

এতে ড. মোহাম্মদ নুরুজ্জামান বলেন, “আইটি সেক্টর বাংলাদেশের অর্থনীতির একটি গুরুত্বপূর্ণ খাত। এই সেক্টরে চাকরির সুযোগ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই জব ফেয়ারের মাধ্যমে আমরা চাকরিদাতা এবং চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে সেতুবন্ধন স্থাপন করতে চাই। আমরা আশা করি, এই জব ফেয়ারটি উভয় পক্ষের জন্যই একটি সুবিধাজনক প্ল্যাটফর্ম হবে।”

জব ফেয়ারে সিভি সাবমিশন এবং স্পট রিক্রুটমেন্টের পাশাপাশি অংশগ্রহণকারী চাকরিপ্রার্থীদের জন্য ছিল আইটি সেক্টরে ক্যারিয়ার গঠন বিষয়ক তিনটি ওয়াার্কশপ এবং দুটি প্লেনারি সেশন। “এন্ট্রাপ্রেনিউরশীপ ই টেক ঃ লাঞ্চিং ইউর স্টার্টআপ জার্নি” ও “ক্যারিয়ার এক্রিডিটেশন ইন আইটিঃ স্ট্র্যাটিডিজ ফর গ্রোথ” এই সেশনগুলোতে বাংলাদেশের আইটি সেক্টরের শীর্ষস্থানীয় উদ্যোক্তা ও মেন্টররা অংশগ্রহণ করেন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সদ্য স্নাতক পাস করা চাকরিপ্রার্থী এবং অভিজ্ঞ চাকরি প্রার্থীরাও মেলায় এসেছেন নতুন চাকির খুঁজতে।

স্কিল জবসের এই আইটি জব ফেয়াারটি চাকরিদাতা এবং চাকরিপ্রার্থীদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে তারা তাদের লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা পাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এই অনুষ্ঠানের সহযোগি পার্টনার হিসেবে রয়েছে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিস (বেসিস), বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস), বাংলাদেশ উইমেন ইন টেকনোলজি (বি ডাব্লিউ আই টি), প্রথম আলো, টি কে গ্রুপ এবং প্রিমিয়াম হোমস লিমিটেড।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *