বর্নাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ‘বিশ্ব উদ্যোক্তা সপ্তাহ বাংলাদেশ ২০২৩’ সমাপ্ত

বর্নাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ‘বিশ্ব উদ্যোক্তা সপ্তাহ বাংলাদেশ ২০২৩’ সমাপ্ত

বাংলাদেশে উদ্যোক্তাদের উদযাপন এবং ক্ষমতায়নের জন্য নিবেদিত ১৬তম বার্ষিক গ্লোবাল এন্টারপ্রেনারশিপ উইক ক্যাম্পেইনটি বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে আজ শেষ হয়েছে। এই তাৎপর্যপূর্ণ সপ্তাহটি ১৩ নভেম্বর থেকে ১৯ নভেম্বর, ২০২৩ পর্যন্ত পালন করা হয় এবং এটি দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলতে প্রস্তুত। ৭৮টিরও বেশি অংশীদার প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণে এই বছরের উদযাপনে বাংলাদেশের ৮টি বিভাগের ৩০টি জেলা জুড়ে ২০০টিরও বেশি ইভেন্ট আয়োজন করা হয়। অংশীদার সংস্থাগুলির মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, চেম্বার অফ কমার্স, অ্যাসোসিয়েশন, সরকারী সংস্থা, আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং গতিশীল যুব গোষ্ঠী রয়েছে। দেশব্যাপী এ আয়োজনে ১০০,০০০ এরও বেশি পুরুষ ও মহিলা সরাসরি অংশগ্রহণ করে এবং অনলাইন সংযোগের মাধ্যমে অতিরিক্ত ৩ মিলিয়ন লোকের কাছে এ কার্যক্রম পৌঁছায়।

আজ (১৯ নভেম্বর’২৩) আন্তর্জাতিক নারী উদ্যেক্তা দিবস ২০২৩ পালনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে জিইএন বাংলাদেশ আয়োজিত সপ্তাহব্যাপী উৎসবের সমাপ্তি হয়।

রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডিতে ড্যাফোডিল প্লাজার গ্রীন গার্ডেন রুফটপের মনোরম পরিবেশে আন্তর্জাতিক নারী উদ্যেক্তা দিবস ২০২৩ এর মহাসমাবেশ স্টার্টআপ, উচ্চাকাঙ্ক্ষী উদ্যোক্তা, ইকোসিস্টেম নির্মাতা, পরামর্শদাতা, বিনিয়োগকারী এবং উৎসাহী উদ্যোক্তাঅংশগ্রহণকারীদের একত্রিত করেছে।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর গ্লোবাল এন্টারপ্রেনারশিপ উইক পালনকালে শনিবারকে আন্তর্জাতিক নারী উদ্যোক্তা দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতদদ ছিলেন মার্কিন দূতাবাসের ইকোনোমিক ইউনিট চীফ জোসেফ গিবলিন। গ্লোবাল এন্টারপ্রেনারশিপ উইকের ন্যাশনাল হোস্ট কে এম হাসান রিপনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মাইডাসের চেয়ারপারসন জাহিদা ইস্পাহানী, ড্যাফোডিল পরিবারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ নুরুজ্জামান ও বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের প্রধান নির্বাহী মুনির হাসান।

গ্লোবাল এন্টারপ্রেনারশিপ উইকের ন্যাশনাল হোস্ট কে এম হাসান রিপন সমাপনী অনুষ্ঠানে সমস্ত অংশীদার এবং সমর্থকদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করার জন্য একটি মুহূর্ত বেছে নিয়েছিলেন, যাদের অটুট প্রতিশ্রুতি এবং উৎসর্গ গ্লোবাল এন্টারপ্রেনারশিপ উইক ২০২৩ কে একটি দুর্দান্ত সাফল্যে পরিণত করতে সহায়ক হয়েছে।

এই চিত্তাকর্ষক সমাপনী অনুষ্ঠানে, জিইএন বাংলাদেশের দল উদ্যোক্তা ইকোসিস্টেমকে আরও শক্তিশালী করার লক্ষ্যে উপস্থিত বিভিন্ন অংশীদার এবং সমর্থকদের কাছ থেকে মূল্যবান অন্তর্দৃষ্টি এবং ধারণা সংগ্রহ করার সুযোগটি গ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে উদ্দীপনা, উদ্ভাবন এবং বাংলাদেশে উদ্যোক্তাকে উৎসাহিত করার অঙ্গীকার দ্বারা চিহ্নিত করা হয়েছিল।

গ্লোবাল এন্টারপ্রেনারশিপ উইক বাংলাদেশ ২০২৩ একটি অনুপ্রেরণা, সহযোগিতা এবং ক্ষমতায়নের সপ্তাহ হওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়, যা আগামীদিনে উচ্চাকাঙ্ক্ষী উদ্যোক্তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে ঘুরে দাঁড়ানোর মঞ্চ তৈরি করবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *