শবে বরাত নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় সেই ইসলামি বক্তার বিরুদ্ধে আরেক মামলা

শবে বরাত নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় সেই ইসলামি বক্তার বিরুদ্ধে আরেক মামলা

পবিত্র শবে বরাত নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করার কারণে আরও একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইবুনালে। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ড. ইউসুফ জিলানি (৪৫) নামের একজন ইসলামি বক্তা বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটি করা হয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ জহিরুল কবিরের আদালতে।

মামলায় আসামি করা হয়েছে শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানী এবং তার ইউটিউব চ্যানেলকে। আকরামুজ্জামান হচ্ছেন ইহইয়া-উস সুন্নাহ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক। এদিকে বাদী ড. ইউসুফ জিলানি হচ্ছেন পাঁচলাইশ থানাধীন হামজারবাগ কাজি বিল্ডিং এলাকার হোসাইন আহমেদের ছেলে।

মামলার ব্যাপারে বাদীপক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দিন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, পবিত্র শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দেয়ার কারণে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত পেয়েছেন বাদী। এ কারণে আসামির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। মামলাটি সাইবার নিরাপত্তা আইন ২০২৩-এর ২৮ ও ৩১ ধারায় করা হয়েছে। মামলাটি গ্রহণ করে নিয়েছে আদালত। এ ব্যাপারে তদন্ত করে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে নির্দেশ প্রদান করেছে আদালত।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, শায়েখ আকরামুজ্জামান ইসলাম ধর্মের পবিত্র শবে বরাতের ব্যাপারে বলেছেন, ১৪ শাবান তথা শবে বরাতের রাতে এভাবে মসজিদে ভিড় না করে যদি (অপ্রকাশযোগ্য জায়গায়) সময় কাটাই, তারপরও এর থেকে ভালো। সে যদি সারা রাত সেখানে (অপ্রকাশযোগ্য জায়গায়) থাকে সেটাও ভালো।

আরও বলেন, শবে বরাত জিনার থেকেও খারাপ। এসব তিনি ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচার করেছেন। আসামির এমন বক্তব্য কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান শবে বরাত তথা ১৪ শাবানকে অবমাননার মাধ্যমে বাদী ড. ইউসুফ জিলানির ধর্মীয় বিশ্বাস ও অনুভূতিতে জঘন্যভাবে আঘাত করেছেন।

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, তার এমন বক্তব্যের কারণে এবং ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচারের জন্য সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি বা মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণা-বিদ্বেষ সৃষ্টি হয়েছে এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করেছে।

এ ব্যাপারে বাদী ড. মো. ইউসুফ জিলানি জানান, পবিত্র শবে বরাত নিয়ে আসামি যেসব কথা বলেছেন, তা ইসলাম ও কুরআন-হাদিসবিরোধী। যা কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত করেছে। এ জন্য আদালতে মামলা করেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি একই অভিযোগে শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানীর বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালে আরও একটি মামলা করা হয়। মামলাটি করেছেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের সদস্য মো. ফুয়াদ বিন হাকি। ওই মামলাটিও আমলে নিয়ে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে আদালত। তারও আগে ২৫ ফেব্রুয়ারি এই একই কারণে অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ ইকবাল হাছান তার মক্কেল মুহাম্মদ মুহিব্বুল্লাহ সিদ্দিকী আল ইয়েমেনীর পক্ষে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট থেকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠান অভিযুক্ত ইসলামি বক্তা আকরামুজ্জামানকে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *