সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদে আল-কুরআনে বিজ্ঞান বিষয়ক কোর্স চালুর দাবি ইবি অধ্যাপকের

সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদে আল-কুরআনে বিজ্ঞান বিষয়ক কোর্স চালুর দাবি ইবি অধ্যাপকের

দেশের সকল মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে আল কুরআনে চিকিৎসা বিদ্যা বিজ্ঞান বিষয়ক গবেষণা সেল খোলা-সহ সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদে আল-কুরআনে বিজ্ঞান বিষয়ক কোর্স চালুর দাবি করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আ ব ম সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী। ড. সিদ্দিকী, বিশ্ববিদ্যালয়টির আল-কুরআন এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক চেয়ারম্যান এবং থিওলজী এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের সাবেক ডিন। প্রথিতযশা এ শিক্ষাবিদ “চিকিৎসা বিজ্ঞানে আল-কুরআনের পথ-নির্দেশনা” শীর্ষক এক জাতীয় অনলাইন সেমিনারে এ দাবি জানান।

গত শুক্রবার (৫ এপ্রিল) অ্যারাবিক কাউন্সিল বাংলাদেশ কর্তৃক দেশের খ্যাতনামা শিক্ষাবিদদের নিয়ে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

অধ্যক্ষ ডক্টর মোহাম্মদ ইউসুফ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথিতযশা বিজ্ঞানী প্রফেসর ড. মোঃ মাহমুদ হাসান চৌধুরী। বিশেষজ্ঞ হিসেবে বক্তব্য রাখেন কার্ডিওলজিস্ট প্রফেসর কর্নেল ডা. জাহিদ হাসান। জাতীয় এ সেমিনারটিতে কী-নোটি স্পিকার ছিলেন অধ্যাপক ড. আ ব ম সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী। সেমিনারটি অত্যন্ত যুগোপযোগী বলে মন্তব্য করেছেন আলোচকবৃন্দ ।

আল কুরআন ও বিজ্ঞানের সমন্বয়ক গবেষকদের মতে, আল করআনের ৬২৩৬টি আয়াতের মধ্যে বৈজ্ঞানিক দিক নির্দেশন আছে এরকম আয়াত সংখ্যা ৭৫০। ডক্টর এম আকবর আলী বিজ্ঞানে মুসলমানের দান গ্রন্থে ২৪১ টি সরাসরি আয়াতসহ চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ে ৬০০ আয়াত রয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন।

এ দুটি মতের সাথে ভিন্নমত পোষণ করে ড. সিদ্দিকী বলেন, আমার দৃষ্টিতে আল কুরআনের ৬২৩৬ টি আয়াতের প্রতিটি আয়াতে কোন না কোন বিজ্ঞানের দিক নির্দেশনা রয়েছে। তন্মধ্যে আজকের গবেষণার হিসাব মতে, চিকিৎসা বিজ্ঞানেরই দিক-নির্দেশনা রয়েছে ৩০০০। ভবিষ্যতে এ বিষয়ে গবেষণা করলে এ সংখ্যা ৪০০০ ছাড়িয়ে যাবে।

তিনি বলেন, চিকিৎসা বিজ্ঞানের মূল উপাদান হলো মানুষ। মানুষ সম্পর্কে আলোচনা এসেছে ৫৫৪ বার। জেনেটিক বা বংশবিদ্যা সম্পর্কে আয়াত রয়েছে ৩৪০টি। চিকিৎসা বিজ্ঞানের অন্যতম উপাদান মানব অঙ্গ (anatomy)। আল কুরআনে ৩৯টি এনাটমির মধ্যে ১৪টি অঙ্গের উল্লেখ আছে ১১০০টি আয়াতে। ২০টি রোগ সম্পর্কিত আয়াত রয়েছে ২০০টি। রোগীর পথ্য হলো খাদ্য। খাদ্য বিষয়ে আয়াত রয়েছে ২০০টির অধিক।

অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী বলেন, সামান্য গবেষণায় আল কুরআনে চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ে ২৪০০টি আয়াত আমি চিহ্নিত করতে পেরেছি। আরো ব্যাপক গবেষণা হলে এ বিষয়ে আয়াত সংখ্যা ৪০০০ ছাড়িয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।

তিনি আরও বলেন, আল-কুরআনে চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ে যা কিছু অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, তা আমি ২১টি শ্রেণীতে বিভক্ত করেছি। আল কুরআনে চিকিৎসা বিজ্ঞানের শতাধিক মূলসূত্র রয়েছে। তন্মধ্যে অত্র প্রবন্ধে ৬৮টি মূলসূত্র উল্লেখ করেছি।

আল কুরআনের চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ক এ ধরনের শতাধিক প্রবন্ধ রচনা করা যেতে পারে এবং অন্তত ৫০টি পিএইচডি ডিগ্রী হতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ শিরোনামগুলো নির্ধারণ করে দিতে পারবেন বলেও তিনি জানান।

বাংলাদেশ একটি বৃহত্তর মুসলিম রাষ্ট্র। এখানে হাজার হাজার স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা রয়েছে। কম-বেশি ৩/৪ কোটি মানুষ কুরআন সম্পর্কে কিছু না কিছু ধারণা রাখে। কিন্তু আল কুরআনের চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ে অবগত আছেন এরকম মানুষের সংখ্যা শতাধিক হবে কিনা জানা নেই বলে মন্তব্য করেন অধ্যাপক ড. আ ব ম সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী।

সেমিনারে ড. সিদ্দিকীর পাঁচটি প্রস্তাবনা:

১. ভবিষ্যতে দেশে একটি Quranic university চালু করা।

২. সকল মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে আল কুরআনে চিকিৎসা বিদ্যা বিজ্ঞান বিষয়ক একটি করে গবেষণা সেল খোলা।

৩. আল কুরআনে চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ে একটি প্রজেক্ট চালু করা। বিজ্ঞানের সকল শাখায় একটি করে প্রজেক্ট গবেষকদের দিয়ে গবেষণা করানো।

৪. সকল সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগগুলোতে আল কুরআনে বিজ্ঞান বিষয়ক একটি করে কোর্স আবশ্যিক করা।

৫. সকল আলিয়া কওমি এবং কলেজগুলোতে আল-কুরআনে বিজ্ঞান বিষয়ে একটি করে কোর্স চালু করা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *