সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নামলে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ

সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নামলে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ

মাঘ মাসের শুরুতেই তীব্র শীতে কাঁপছে পুরো দেশ। এর মধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলায় তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। কনকনে ঠান্ডা ও শৈত্যপ্রবাহের কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এমন বাস্তবতায় যেসব জেলার তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নামবে, সেসব জেলার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রাখার পৃথকভাবে নির্দেশনা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। মাউশি প্রথমে ১৭ ডিগ্রির নীচে নামার কথা বলা হলেও পরে তা সংশোধনী দিয়ে ১০ ডিগ্রির নীচে নামার কথা বলা হয়।

মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) বিকালে মাউশির সহকারী পরিচালক এস এম জিয়াউল হায়দার হেনরী স্বাক্ষরিত অফিস আদেশ থেকে এ তথ্য জানা যায়। এর কিছুক্ষণ পর একই ধরনের নির্দেশনা দেয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, দেশের কোনো এলাকায় তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নামলেই সেখানে বন্ধ থাকবে স্কুল। স্থানীয় পর্যায়ে আবহাওয়ার পরিস্থিতি বিবেচনা করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করার ব্যাপারে বিভাগীয় পরিচালক ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে সিদ্ধান্ত নিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

অতিরিক্ত শীতে দেশের শিশু শিক্ষার্থীরা যাতে অসুস্থ হয়ে না পরে, সেজন্যই এমন সিন্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) শাহ রেজওয়ান হায়াত। তবে দেশের সব জেলায় এ নির্দেশনা কার্যকর হবে না বলেও জানান এ ডিজি।

মাউশি’র জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, দেশের বিভিন্ন জেলায় তীব্র শৈত্যপ্রবাহ প্রবাহিত হচ্ছে। চলমান এই শৈত্যপ্রবাহে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে মর্মে বলে জানা যাচ্ছে। ‘এক্ষেত্রে যেসব জেলায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে (আবহাওয়ার পূর্বাভাসের প্রমাণসহ) নেমে যাবে, আঞ্চলিক উপপরিচালকরা ওইসব জেলার শিক্ষা কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ বন্ধ রাখার বিষয়ে নির্দেশনা প্রদানের সদয় অনুমতি প্রার্থনা করছি।’

নির্দেশনাটি ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, রংপুর, বরিশাল, কুমিল্লা ও ময়মনসিংহ অঞ্চলের মাউশির আঞ্চলিক উপপরিচালকদের পাঠানো হয়েছে।

চলতি জানুয়ারি মাসে দেশে শীতের প্রকোপ থাকে সবচেয়ে বেশি। এ মাসে রাতের গড় তাপমাত্রা থাকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর দেশের তাপমাত্রা সবথেকে বেশি নামে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগে। খুলনা ও সিলেট বিভাগের কিছু জায়গাতেও তাপমাত্রা নেমে আসে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় শ্রীমঙ্গলে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজারে ২৪.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই সময়ে রাজশাহী, ঈশ্বরদী, বদলগাছী, তাড়াশ, রংপুর, দিনাজপুর, সৈয়দপুর, রাজারহাট, সাতক্ষীরা ও চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমেছে।

এর আগে গত জুনে টানা তাপপ্রবাহের কারণে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ করতে হয়েছিল সরকারকে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *